সেলুনে যুবকের গলাকাটা লাশ

 

 

কুমিল্লার ময়নামতি এলাকায় একটি সেলুনে এক যুবকের দুই পা ও গলাকাটা লাশ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার রাত আটটার দিকে বস্তাবন্দী লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। স্বজনদের দাবি, তাঁকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত যুবকের নাম দেলোয়ার হোসেন (২৮)। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার থানা রোড এলাকার জাহের আলীর ছেলে। তিনি ভাঙারি ব্যবসায়ী ছিলেন।নিহত দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী সালমা আক্তার দাবি করেন, ময়নামতি এলাকায় গ্যারিসন সিনেমা হল লাগোয়া লক্ষণ হেয়ার কাটিং নামের সেলুনের স্বত্বাধিকারী ও কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার আমতলী এলাকার বাসিন্দা লক্ষণ চন্দ্র শীলের সঙ্গে দেলোয়ারের পরিচয় ছিল। সেই সূত্রে দেলোয়ারের কাছ থেকে টাকা ধার নেন লক্ষণ চন্দ্র। গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে দেলোয়ার কুমিল্লা থেকে বাড়ি ফেরার কথা। সেই সময় দেলোয়ার তাঁকে (স্ত্রী) ফোন করে বলেন তিনি লক্ষণের সেলুনে আছেন। এরপর থেকে দেলোয়ারের মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। শুক্রবার সকালে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তাঁর সন্ধান না পেয়ে কুমিল্লার কোতোয়ালি মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তিনি। পরে পুলিশ লক্ষণের সেলুন ঘরের তালা ভেঙে দেলোয়ারের দুই পা কাটা ও গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *